স্টাফ রিপোটারঃ ০৮আগষ্ট, ২০১৮ইং
মেহেরপুর -১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক ফরহাদ হোসেন দোদুল বলেছেন, গাছ আমাদের পরম বন্ধু। ফলের বাগান করে অনেকেই লাভবান হচ্ছেন। এর মধ্য দেশের ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার পুষ্টির জোগান হচ্ছে। অপরদিকে কাঠের চাহিদাও মিটছে গাছ থেকে। তবে আর্থিক ও পুষ্টির বিষয়টি বিবেচনায় রেখে বেশি বেশি করে ফলের বাগান তৈরী করতে হবে। গতকাল মঙ্গলবার মুজিবনগর উপজেলা পরিষদ চত্তরে ৩ দিন ব্যাপি ফলদ বৃক্ষমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ আহব্বান জানান। মুজিবনগর উপজেলা কৃষি অফিস আয়োজিত ফলদ বৃক্ষ মেলার উদ্বোধনী উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় ।
প্রধান অতিথি বক্তৃতায় বলেন, অপ্রতিরোধ্য দেশের অগ্রযাত্রা, ফলের পুষ্টি দেবে নতুন মাত্রা, এ স্লোগানে সারাদেশেই ফলদ বৃক্ষমেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। স্লোগানের মধ্য দিয়েই অনুধাবন করা যায় মূল বিষয়টি। মানব দেশের প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদানের একটি বড় অংশই আসে ফল থেকে। আমরা ছোট বেলায় অনেক ধরনের দেশীয় ফল খেয়েছি। এখন আমাদের দেশের কৃষি বিজ্ঞানীরা সেই ফল থেকে উন্নত জাতের গাছ তৈরী করছেন। এতে বানিজ্যক ভিত্তিতে ফল বাগান করে স্বাবলম্বী হচ্ছেন দেশের মানুষ।
কৃষিখাতে বর্তমান সরকারের গুরুত্ব ও সফলাতার দিক তুলে ধরে সংসদ সদস্য অধ্যাপক ফরহাদ হোসেন আরো বলেন, দেশের জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে কমছে আবদি জমি। কিন্তু বর্তমান সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টায় কৃষি বিভাগ ও চাষিদের আন্তরিকতায় দেশ আজ খাদ্য সয়ংসম্পূর্ন।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মেজবাহউদ্দীন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মুজিবনগর উপজেলা কৃষি অফিসার আনিসুজ্জামান। উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন জেলা কৃষি প্রশিক্ষন অফিসার স্বপন কুমার খাঁ, মুজিবনগর থানা ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আব্দুল হাশেম, জেলা বীজ প্রত্যায়ন অফিসার এ.এম আব্দুল হালিম, বাগোয়ান ইউপি চেয়ারম্যান আয়ূব হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হেলালউদ্দীন, সাধারন সম্পাদক শেখ সাকিব, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বেলাল হাসান বিপ্লব, সহসভাপতি মতিউর রহমান মতিন, উপজেলা যুব মহিলালীগের সভাপতি তহমিনা খাতুন, সম্পাদিকা তকলিমা খাতুন। অনুষ্ঠান সঞ্চলনায় ছিলেন উপজেলা সহকারী কৃষি সম্প্রসারন অফিসার আব্দুস সোহবান। মেলায় মোট ১০টি স্টল স্থান পেয়েছে। স্টলগুলোতে শোভা পাচ্ছে ফলজ, বনজ, ঔষধিসহ বিভিন্ন প্রজাতির গাছের চারা। পরে সেখানে গাছের চারা বিতরণ করা হয়।